ঢাকা, রোববার   ২৭ নভেম্বর ২০২২ ||  অগ্রাহায়ণ ১২ ১৪২৯

‘গোয়া’ গিয়ে যা করা মানা!

ভ্রমণ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:৩২, ৭ নভেম্বর ২০২২  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বর্তমানে বিশ্বের জনপ্রিয় ভ্রমণ গন্তব্যগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো গোয়া। প্রতিবছর বিশ্বের লাখ লাখ পর্যটক ভিড় করেন এই স্থানে। গোয়া সমুদ্রসৈকতের জন্য বিখ্যাত।

এটি ভারতের পশ্চিম উপকূলে কোঙ্কণ নামক অঞ্চলে অবস্থিত। গোয়ার উত্তরে মহারাষ্ট্র, পূর্ব ও দক্ষিণে কর্ণাটক ও পশ্চিমে আরব সাগর। গোয়ার রাজধানী পণজী। ভাস্কো দা গামা এর বৃহত্তম শহর। ঐতিহাসিক মারগাউ শহরে আজও পর্তুগিজ সংস্কৃতির প্রভাব দেখতে পাওয়া যায়।

গোয়া সমুদ্রসৈকত, মন্দির ও বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থাপত্যের জন্য বিখ্যাত স্থান। গোয়ায় গেলে বিভিন্ন প্রজাতির প্রাণী ও উদ্ভিদের দেখাও মেলে।

তবে গোয়া ভ্রমণে গিয়ে বেশ কিছু কাজ আছে যা করা অবৈধ। গোয়া রাজ্য সরকার কিছু ক্রিয়াকলাপকে বেআইনি বলে অভিহিত করেছেন। এমনকি নিয়ম ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার বিষয়েও জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষ।

সাম্প্রতিক রিপোর্ট থেকে জানা গেছে, পর্যটকদের জন্য সমুদ্র সৈকতকে আরও নিরাপদ করতে, গোয়া রাজ্যের পর্যটন বিভাগ সমুদ্র সৈকতে বেআইনি কার্যকলাপ বন্ধ করেছেন।

যেমন- পর্যটকদের কাছে টিকিট ও প্যাকেজ বিক্রি করা, রাস্তার ধারে রান্না করাসহ বিভিন্ন বিষয় নিষিদ্ধ করা হেয়েছে। এসব কাজে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণাও দেওয়া হয়েছে সেখানে।

যারা এরই মধ্যে গোয়া ভ্রমণে যাওয়ার কথা ভাবছেন তারা এ বিষয় সম্পর্কে আগে থেকেই জেনে রাখুন। গোয়া গিয়ে কী কী করা মানা জেনে নিন-

প্লাস্টিক নিষিদ্ধ

গোয়া সমুদ্রসৈকতে ১ জুলাই ২০২২ থেকে প্লাস্টিক ব্যবহার নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এছাড়া দূষণ পর্যবেক্ষণ সংস্থার দ্বারা জারি করা বিজ্ঞপ্তি অনুসারে, গোয়ায় একক-ব্যবহারের প্লাস্টিক আইটেম নিষিদ্ধ।

অর্থাৎ সাগর পাড়ে যাওয়ার সময় প্লাস্টিকের পানির বোতল, নানা ধরনের খাবার ইত্যাদি নেওয়া নিষেধ। ধরা পড়লে আপনাকে গুনতে হবে জরিমানা।

অনুমোদিত জোন ছাড়া সৈকতে নামা নিষেধ

গোযার পর্যটন বিভাগের দেওয়া তথ্যমতে, সমুদ্রসৈকতের অনুমোদিত অঞ্চলগুলো ব্যতীত পানিতে নামা বা বোটিং করা নিষিদ্ধ। অনুমোদিত টিকিট কাউন্টার ও অফিস ব্যতীত কারও কাছ থেকে বোটিংয়ের টিকিট কেনাও নিষিদ্ধ।

সৈকতে রান্না করা যাবে না

গোয়ায় গিয়ে সৈকতে খাবার রান্না বা অ্যালকোহল সেবন থেকে দূরে থাকবেন। পর্যটকদের এ ধরনের ক্রিয়াকলাপ নিয়ন্ত্রণ করার জন্য নতুন কঠোর নিয়ম চালু করা হয়েছে। গোয়া সরকার সৈকতে মদ্যপান ও রান্নার উপর কঠোর আইন জারি করেছেন।

রাস্তার পাশে রান্না করা

শুধু সৈকতই নয়, রাস্তার ধারেও রান্না করা নিষিদ্ধ। রাজ্যের পর্যটন বিভাগ রাস্তার ধারে কোনো প্রকার রান্না নিষিদ্ধ করেছে। কারণ দেখা গেছে, অনেক পর্যটক প্রায়ই রাস্তার ধারে রান্না করে ও গণ্ডগোল সৃষ্টি করে।

সৈকতে শোয়ার জন্য ডেস্ক বিছানা নিষিদ্ধ

নির্ধারিত বা উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে বৈধ অনুমতি না নিয়ে সৈকতে অনেক ডেক-বেড, টেবিল ও অন্যান্য আইটেম বেআইনিভাবে স্থাপন নিষিদ্ধ। তাই এগেুলো ব্যবহারের আগে নিশ্চিত করুন যে, আপনি যেটি ব্যবহার করছেন সেটি অনুমোদিত কি না।

অননুমোদিত যানবাহন

গোয়া ভ্রমণে গিয়ে অননুমোদিত গাড়ি ব্যবহার করা যাবে না। কোনো গাড়ি ব্যবহারের আগে সেটির বৈধ নথিপত্র আছে কি না ও আপনি সেটি ভাড়া নেওয়ার সময় সব তথ্যাদি প্রদান করছেন কি না সেদিকে সতর্ক থাকুন। গোয়ার সৈকতে অননুমোদিত যানবাহন চালানো বেআইনি।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়