ঢাকা, সোমবার   ১৫ আগস্ট ২০২২ ||  শ্রাবণ ৩০ ১৪২৯

কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের জন্য বিশেষায়িত হাসপাতাল হচ্ছে

হেলথ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৫:০৪, ১ জুলাই ২০২২  

উখিয়া বিশেষায়িত হাসপাতাল

উখিয়া বিশেষায়িত হাসপাতাল

জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থার (ইউএনএইচসিআর) অর্থায়নে কক্সবাজারের উখিয়ায় একটি বিশেষায়িত হাসপাতাল নির্মাণ করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের মধ্য দিয়ে ইউএনএইচসিআর হাসপাতালটিতে ৩০ জুন (বৃহস্পতিবার) থেকে চিকিৎসাসেবা দেওয়া শুরু করেছে। গণমাধ্যমে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ইউএনএইচসিআর এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

অত্যন্ত চমৎকাভাবে সজ্জিত এ হাসপাতাল থেকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের থেকে সেবা নেওয়া যাবে। এছাড়া হাসপাতালটি রোগীদের সেকেন্ডারি কেয়ার দিতেও সক্ষম। এটি থেকে রোহিঙ্গাদের আশ্রয়দানকারী বাংলাদেশি, পার্শ্ববর্তী ক্যাম্পে বসবাসরত রোহিঙ্গা শরণার্থীরা স্বাস্থ্যসেবা নিতে পারবেন।

বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব ডা. মো. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. কামরুল হাসান, ইউএনএইচসিআর প্রতিনিধি জোহানেস ভেন ডের ক্লাউ সমঝোতা চুক্তিতে (এমওইউ) স্বাক্ষর করেন।

হাসপাতালের প্রাচীর তৈরি, প্রয়োজনীয় সব সরঞ্জাম সরবরাহ ও কর্মীদের বেতন ইউএনএইচসিআর দেবে বলে চুক্তি হয়েছে। নতুন ওই হাসপাতালের নাম হবে ‘উখিয়া বিশেষায়িত হাসপাতাল’। সমঝোতা স্মারকে আরও বলা হয়েছে, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের তিন বছর মেয়াদের মধ্যে পর্যায়ক্রমে হাসপাতালের সম্পূর্ণ দায়িত্ব বুঝে নেবে।

হাসপাতালটিতে বহির্বিভাগ সেবাও চালু থাকবে। সেখানে সার্জারি, ট্রমা কেয়ার, চক্ষু-ডেন্টাল, ফিজিওথেরাপি ও প্যালিয়েটিভ কেয়ার চালু থাকবে। একই সঙ্গে সার্বক্ষণিক জরুরি সেবার ব্যবস্থাও থাকবে। যেখানে অত্যাধুনিক ল্যাবরেটরি ও ডায়াগনস্টিক সিস্টেমের সুবিধা থাকবে। এমনকি হাসপাতালে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় ও ইউএনএইচসিআরের সহযোগী সংস্থা গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র, রিলিফ ইন্ট্যারন্যাশন্যালসহ অরবিসের পক্ষ থেকে সেবা দেওয়া হবে।

হাসপাতালটির আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ সুবিধা হচ্ছে, রোগীরা এখান থেকে ভার্চুয়ালি টেলিমেডিসিন সেবা নিতে পারবেন। টেলিমেডিসিনের মাধ্যমে সার্জারি, অর্থোপেডিকস ও গাইনোকোলজির সেবা দেওয়া হবে।

ভাসানচরে বসবাসরত রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় ১৮ জুন থেকে নোয়াখালী জেলার সিভিল সার্জনের মাধ্যমে একই রকম টেলিমেডিসিন সেবা দেওয়া শুরু করেছে।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়