ঢাকা, সোমবার   ৩০ জানুয়ারি ২০২৩ ||  মাঘ ১৬ ১৪২৯

হিমালয়ের ভয়ংকর চূড়ায় প্রথম বাংলাদেশি

ভ্রমণ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৫৬, ৩০ অক্টোবর ২০২২  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

তুষারধসের ঝুঁকি নিয়ে খাড়া গিরিপথ বেয়ে হিমালয়ের ২২ হাজার ৩৪৯ ফুট উচ্চতার আমা দাবলাম চূড়ায় বাংলাদেশের পতাকা উড়ালেন চট্টগ্রামের তরুণ মো. বাবর আলী। প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে তিনি নেপালের ওই পর্বত চূড়ায় ওঠেন। এ তথ্য জানিয়েছেন তার অভিযানের সমন্বয়ক ফারহান জামান।

ফারহান জামান গণমাধ্যমকে বলেন, নেপালের ৬ হাজার ৮১২ মিটার উচ্চতার এই পাহাড়টি নামের অর্থ ‘মায়ের গলার হার’। নেপালের স্থানীয় সময় গত মঙ্গলবার সকাল ৯টা ৩ মিনিটে চূড়ায় পৌঁছান বাবর। চূড়ায় আরোহণের পর বাবরের বেজক্যাম্পে ফিরতে প্রায় দেড় দিন লেগেছে। সেখান থেকে প্রায় এক ঘণ্টা হেঁটে একটি গ্রামে পৌঁছান নেটওয়ার্কের জন্য। এরপর তাকে হোয়াটসঅ্যাপে কল দিয়ে বিষয়টি নিশ্চিত করেন বাবর।

আগামী ৯ নভেম্বর বাবর আলীর দেশে ফেরার কথা জানিয়ে ফারহান দাবি করেন, ‘এর আগে বাংলাদেশ থেকে কেউ এই অভিযানে সফল হয়নি। এর আগে এমএ মুহিত ভাই চেষ্টা করেছিলেন। 

চট্টগ্রামের এই তরুণ পেশায় চিকিৎসক হলেও তার ধ্যানজ্ঞান পর্বতারোহণ। চট্টগ্রামের একমাত্র পর্বতারোহণ ক্লাব ‘ভার্টিক্যাল ড্রিমার্স’ এর অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ও বর্তমান কার্যকরী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক তিনি।

বাবরের আমা দাবলাম অভিযানের কথা তুলে ধরে এক্সপেডিশনের সমন্বয়ক ফারহান জানান, চলতি বছরের ৯ অক্টোবর বাবর নেপালের উদ্দেশ্যে দেশ ত্যাগ করেন। ১১ অক্টোবর অভিযানের জন্য প্রয়োজনীয় অনুমতি ও প্রস্তুতি সম্পন্ন করেন। তবে বাধা হয়ে দাঁড়ায় আবহাওয়া। বৈরী আবহাওয়ার কারণে কাঠমান্ডু থেকে নিয়মিত লুকলার বিমান বন্ধ হয়ে যায় ওই সময়। তাই পরদিন সড়ক পথে যাত্রা করেন বেজক্যাম্পের উদ্দেশে। কিছুটা পথ গাড়িতে, বাকিটা হেঁটে ১৯ অক্টোবর পৌঁছান আমা দাবলাম বেজক্যাম্পে।

ফারহান আরও জানান, ক্যাম্পে পৌঁছে একদিন বিশ্রাম নিয়ে পরপর দুইদিন ক্যাম্প ১ ও ক্যাম্প ২ এ গিয়ে আবার বেজক্যাম্পে ফিরে আসেন বাবর। কারণ, পর্বত আরোহণ শুরু করার আগে স্বল্প অক্সিজেন থাকা আবহাওয়ায় শরীরকে মানিয়ে নেওয়ার জন্য এটা করতে হয়।

২৩ অক্টোবর ভোরে বেজক্যাম্প থেকে বাবরের মূল যাত্রা শুরু হয় জানিয়ে ফারহান বলেন, ২৫ অক্টোবর ভোরে তিনি পর্বতের চূড়ায় পা রাখেন। এর প্রায় দুদিন পরে ২৬ অক্টোবর বিকালে তিনি সুস্থ অবস্থায় বেজক্যাম্পে নেমে আসেন। এই পুরো পথে তার সঙ্গে ছিলেন তার পর্বতারোহী বন্ধু ও গাইড বীরে তামাং।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়