ঢাকা, রোববার   ২৭ নভেম্বর ২০২২ ||  অগ্রাহায়ণ ১২ ১৪২৯

অর্থের লোভে দেশবিরোধী চক্রের সাথে হাত মিলিয়েছে ভুট্টো

রাজনীতি ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৫:৩৪, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২  

আব্দুর রব ভুট্টো

আব্দুর রব ভুট্টো

অর্থের লোভে দেশবিরোধী চক্রের হোতা আব্দুর রব ভুট্টোর অপপ্রচার যেন থামছেই না। প্রতিদিন ফেসবুক-ইউটিউবে লাইভে এসে ছড়াচ্ছেন নানা রকমের গুজব। তার লাইভে অতিথি হয়ে যারা আসছেন তারাও দেশবিরোধী গুজব সেলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য বলে খবর পাওয়া গেছে।

প্রশ্ন হচ্ছে, কেনো আব্দুর রব ভুট্টো এমনটি করছেন? কার ইন্ধনে? কিসের লোভে তিনি এমনটি করতে পারেন? এ বিষয়ে অনুসন্ধান চালিয়ে জানা যায়, মূলত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে তুষ্ট করে তার থেকে কোটি টাকা হাতিয়ে নিতেই এমনটি করেন গুজবকারী ভুট্টো সাহেব। আর এ টাকা দিয়ে তিনি করে বেড়ান নারী নিয়ে আমোদ ফুর্তি।

এ বিষয়ে আব্দুর রব ভুট্টো’র দ্বিতীয় স্ত্রী বলেন, নারীর নেশার জন্যই তার সঙ্গে আমার ২০১৬ সালে ডিভোর্স হয়ে যায়। এরপরও তিনি একাধিক নারীর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কে জড়ান। তার নামে নারী নির্যাতনের মামলা হবার পর তিনি লুকিয়ে লন্ডন পালিয়ে যান। এখন শুনছি লন্ডনে গিয়ে নারীদের সঙ্গে আমোদ ফুর্তিতে ব্যস্ত। দুঃখের বিষয় তার এসব অর্থের যোগান দেন একজন রাজনৈতিক ব্যক্তি। যিনি নিজেও দুর্নীতির সাজা খাটার ভয়ে লন্ডনে পালিয়ে আছেন। তিনিই আমার প্রাক্তন লম্পট স্বামীকে সরকার বিরোধী সকল কাজে যুক্ত করেছেন। এটি দুঃখজনক আমরা এখনো যদি প্রতিহিংসার রাজনীতি থেকে বের হতে না পারি, তাহলে দেশ অগ্রসর হবে না।

এ প্রসঙ্গে আব্দুর রব ভুট্টোর প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেও প্রায় একই ধরনের উত্তর পাওয়া যায়। আব্দুর রবের প্রথম স্ত্রী বলেন, তার সঙ্গে আমার জোর করে বিয়ে হয়। ভুট্টো সাহেব আমাকে বোঝান, তিনি অনেক চরিত্রবান। পরে তার আসল চরিত্র জানতে পারি। আব্দুর রবের নারী লোলুপতা শেষ করে দিলো আমার জীবন।

আব্দুর রব ভুট্টো’র সার্বিক কর্মকাণ্ড সম্পর্কে বলতে গিয়ে একজন রাজনৈতিক বিশ্লেষক বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এসে দেশবিরোধী কথা বলে একটি বিশেষ শ্রেণির মানুষকে খুশি করা গেলেও আদতে চারিত্রিক সমস্যা যুক্ত মানুষের কথায় কেউ খুশি হতে পারে না। যারা গুজব ছড়াতে টাকা নেয়, সে টাকা আমোদ ফুর্তির কাজে ব্যবহার করে তারা আর যাই হোক, দেশের বন্ধু হতে পারে না।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়