ঢাকা, মঙ্গলবার   ৩০ নভেম্বর ২০২১ ||  অগ্রাহায়ণ ১৫ ১৪২৮

মহানবী (সা.) যা দিয়ে সকালের নাস্তা করতেন

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৯:৩১, ১৬ আগস্ট ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মহামানব প্রিয় নবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) যেসব খাবার গ্রহণ করেছেন, তা ছিল সর্বোচ্চ স্বাস্থ্যসম্মত ও পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ। বিজ্ঞানের গবেষণায় বিমূর্ত হচ্ছে রাসূল (সা.)-এর খাবারগুলোর গুণাগুণ ও মানবদেহের জন্য সেগুলোর প্রয়োজনীয়তা।

রাহমাতুল্লিল আলামিন মহানবী (সা.)-এর সকল কাজই ছিল মানব জাতির জন্য আদর্শ। রাসূল (সা.) -এর ঘুম, খাওয়া, হাটা, চলা এই সব বিষয়ের মাঝেই রয়েছে উত্তম আদর্শ।

নবীজী (সা.) বার্লি, খেজুর, ডুমুর, আঙ্গুর, মধু, তরমুজ, দুধ, মাশরুম, অলিভ অয়েল, ডালিম-বেদানা, ভিনেগার ও পানি পছন্দ করতেন। এগুলোর মধ্যে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম প্রতিদিন সকালে সাতটি খেজুর ও দুধ দিয়ে নাস্তা করতেন।

সাহাবায়ে কেরাম (রা.) প্রতিদিন সাতটি খেজুর ও দুধ দিয়ে নাস্তার বিষয়ে জানতে চাইলে রাসূল (সা.) বলেন, সাতটি খেজুর ও দুধ দিয়ে নাস্তা করা মস্তিষ্কের জন্য ভালো। এরপরে সাহাবিরাও সাতটি খেজুর ও দুধ দিয়ে নাস্তা করতেন।

বিজ্ঞানীরা গবেষণা করে দেখেছেন প্রতিদিন সকালে সাতটি খেজুর ও দুধ দিয়ে নাস্তা করলে মানুষের শরীরের হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড ও এনজাইমগুলো দ্রুত কাজ করা শুরু করে। এতে করে মানুষের শরীর খালো থাকে। প্রতিদিন সকালে সাতটি খেজুর ও এক কাপ দুধ নিয়ে নাস্তা করলে মানুষের মস্তিষ্কের বুদ্ধিমত্তা বৃদ্ধি পায়। লিভার ভালো থাকে। ত্বক সুন্দর হয়।

মানব জাতির মুক্তির দূত রাসূল (সা.) এর প্রতিটি সুন্নত মানার মধ্যেই যে কল্যাণ বিজ্ঞানীদের এই একটি বিষয়ের উপর গবেষণা থেকেই বোঝা যায়। আজ থেকে প্রায় সাড়ে ১৪ শ’ বছর আগে আমাদের প্রিয় নবী (সা.) যেভাবে নাস্তা করেছেন সেই ভাবে নাস্তা করার মাঝে বিজ্ঞানীরা কল্যাণ খুঁজে পেয়েছে।  

মুসলিম জাতি হিসেবে আমাদের সবার উচিত মহানবী হযরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের প্রতিটি সুন্নতের উপর আমল করা। নি:সন্দেহে এতেই আমাদের মাঝে রয়েছে কল্যাণ।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়